আজ, রবিবার | ১৯শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ | রাত ১০:৫৭

ব্রেকিং নিউজ :
নবীজীকে কটুক্তি: মাগুরার রামচন্দ্রপুর গ্রামে দুটি বাড়িতে আগুন-পুলিশের গুলিতে অর্ধশত আহত মাগুরার এমপি সাকিব আল হাসানের নামে জুয়ার ভূয়া বিজ্ঞাপন মাগুরায় ফিলিস্তিন সংহতি সমাবেশ শ্রীপুরে সমাজসেবা কার্যালয়ের অনুদানের অর্থ বিতরণ মাগুরার শ্রীপুরে দুটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ দু’জন আটক সাংবাদিক লক্ষণ চন্দ্র মন্ডলের অন্তেস্টিক্রিয়া সম্পন্ন মহম্মদপুরে মসজিদ নির্মাণের টাকা আত্মসাতের ঘটনায় গ্রামে উত্তেজনা মাগুরায় অসহায় শিক্ষার্থীদের মধ্যে সরকারি অনুদান বিতরণ মাগুরা শহরে চারতলা ভবন থেকে লাফিয়ে অকৃতকার্য পরীক্ষার্থীর আত্মহত্যা! আবারো সিআইপি সম্মাননা পেলেন বিজনেস আইকন মাগুরার আব্দুল মুক্তাদির

এসএসসির ফলাফলে মাগুরা জেলা আবার চারধাপ নেমে গেলো

মাগুরা প্রতিদিন ডটকম : এক বছরের মাথায় এসএসসির ফলাফলে আবারও মাগুরা জেলার অধ:পতন ঘটেছে। দীর্ঘদিনের দশম স্থান থেকে গত বছর আমুল পরিবর্তন ঘটিয়ে চতুর্থ স্থানে উন্নীত হলেও এবার চারধাপ পড়ে অষ্টম স্থানে চলে গেছে। এক বছরের মাথায় এমন ফলাফলে শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের নজরদারির অভাবকে দায়ি করেছেন অনেকে।

৩১ মে সারাদেশে এসএসসি এবং দাখিল পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। প্রকাশিত ফলাফল থেকে দেখা গেছে, এ বছর যশোর শিক্ষা বোর্ডের অধিনে মাগুরায় সর্বমোট ৯ হাজার ৮৫৩ জন শিক্ষার্থি এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়। এর মধ্যে ৮ হাজার ১১৩ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। শতকরা পাশের হিসাবে যেটি ৮২ দশমিক ২০ ভাগ। অথচ ২০১৯ সালে জেলার এসএসসি ফলাফলে পাশের হার ছিল ৯১ দশমিক ৯৮ শতাংশ।

সূত্র মতে, জেলায় এবছর এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়েছে মোট ৫০১ জন শিক্ষার্থি। এর মধ্যে সদর উপজেলায় ২৯৬ জন, মহম্মদপুর উপজেলায় ৭৭ জন, শালিখা উপজেলায় ৬৬ জন এবং শ্রীপুর উপজেলায় মোট ৬২ জন শিক্ষার্থি। অথচ গত বছর জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থির সংখ্যা ছিল ৩৬৪ জন।

অন্যদিকে মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের অধিন মাগুরায় মোট ৭৬ দশমিক ০৯ শতাংশ পাশ করেছে। এর মধ্যে জিপিএ পেয়েছে ২৩ জন। গত বছর জিপিএ-৫ পেয়েছিল ১৩ জন। কিন্তু পাশের হার এ বছরের তুলনায় বেশি ছিল অর্থাত্ ৯১ দশমিক ৩৬ শতাংশ শিক্ষার্থি উত্তীর্ণ হয় গত বছর।

সূত্রমতে, দীর্ঘ ১০ বছরেরও অধিককাল ধরে যশোর শিক্ষাবোর্ডের মধ্যে মাগুরার এসএসসির ফলাফলে ধারাবাহিকভাবে একেবারে শেষ ধাপ দশম স্থানে পড়ে ছিল। কিন্তু ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় মাগুরা জেলার শিক্ষার্থিরা অভূতপূর্ব সাফল্য বয়ে আনে। ছয়ধাপ উপরে চতুর্থ স্থান দখলের কৃতিত্ব অর্জন করে তারা। ওই ফলাফলে জেলার সাধারণ মানুষ শিক্ষার্থি-অভিভাবকদের চোখে মুখে এবং শিক্ষাঙ্গণের পরিবেশে মোহনীয় রূপ দেখতে পায়। কিন্তু সেই ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে পারেনি স্থানীয় প্রশাসন এবং শিক্ষা সংশ্লিষ্টরা।

ফলাফল পর্যালোচনায় দেখা যায়, এ বছর গত বছরের তুলনায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থির সংখ্যা বৃদ্ধি পেলেও অকৃতকার্য শিক্ষার্থির সংখ্যাও বেড়েছে ঢের। যার প্রেক্ষিতে গত বছরের ফলাফলে সুধিমহলের মধ্যে দারুন সন্তুষ্টি দেখা গেলেও এক বছরের ব্যবধানে আবারও সেই পুরণো ধারায় ফিরে যাওয়ার ঘটনায় সাধারণ অভিভাবকদের মধ্যে নিদারুন অসন্তোষ দেখা গেছে। আর এমন ফলাফলের জন্যে তারা শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের গাফিলতি এবং প্রশাসনের নজরদারির ঘাটতিকে দায়ি করেছেন।

তথ্যানুসন্ধ্যানে দেখা গেছে, এ বছর মাগুরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে পাশের হার গত বারের তুলনায় দশমিক ৫ শতাংশ বৃদ্ধির পাশাপাশি জিপিএ-৫ প্রাপ্তির হারও বেড়েছে। গত বছর বিদ্যালয়টি থেকে ৬০ জন শিক্ষার্থি জিপিএ-৫ পেলেও এ বছর সেটি বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯১তে। কিন্তু অকৃতকার্য হয়েছে ২ জন শিক্ষার্থি।

অন্যদিকে ভালো ফল করেছে মাগুরা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থিরাও। এ বছর বিদ্যালয়টি থেকে ৯৫ জন শিক্ষার্থি জিপিএ-৫ পেলেও ৬ জন শিক্ষার্থি অকৃতকার্য হয়েছে। গত বছর বিদ্যালয়টি থেকে ৭৪ জন শিক্ষার্থি জিপিএ-৫ পায়।

বিদ্যালয়ের পাশের হার বৃদ্ধির পাশাপাশি ভালো ফলাফলের ধারা অব্যাহত রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন মাগুরা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জিয়াউল হাসান। সামগ্রিকভাবে জেলায় পাশের হার কমে যাওয়া এবং এ থেকে উত্তোরণে তিনি শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি অভিভাবকদের নজরদারি বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন।

তিনি বলেন, লেখাপড়ার মানোন্নয়নে অভিভাবক সমাবেশ জরুরি। প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেই অভিভাবক সমাবেশ ও শিক্ষার্থিদের মনিটরিং বৃদ্ধির মাধ্যমে সমন্বিত উদ্যোগ নেয়া গেলে সুফল পাওয়া যেতে পারে।

অন্যদিকে মাগুরা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নির্মল কুমার জোয়ার্দার শিক্ষার্থিদের প্রতি অভিভাবকদের নজরদারি বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন।

শেয়ার করুন...




©All rights reserved Magura Protidin. 2018-2022
IT & Technical Support : BS Technology